রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ১১:২০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা দৈনিক হাওয়া ০৭ মার্চ ২০২১ ইং। আতংকে কুষ্টিয়াবাসী পুলিশ পরিচয়ে লাগাতার ছিনতাই দীর্ঘদিনের শৃংখলা ভঙ্গের পরিনতি অভিযোগ স্থানীয়দের কুমারখালীতে আওয়ামীলীগের দু‘গ্রুপের দ্বন্দে কার্যকরী কমিটির সভা পন্ড : পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন-উত্তেজনা ইবির করোনাকালীন প্রণোদনা প্যাকেজে অসমতা ২৭ ঘন্টা পর কুষ্টিয়া- রাজবাড়ী রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক কুষ্টিয়ায় সম্পত্তি দখল নিয়ে দ্বন্দে ভগ্নিপতির মৃত্যুতে ৮ জনকে আসামী করে মামলা একসঙ্গে ৪ প্রেমিক নিয়ে পলায়ন তরুণীর কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় সড়কে ড্রামট্রাক আটকে দিয়ে গ্রামবাসীর প্রতিবাদ

পদ্মা নদীর আগাম ভাঙন শুরু : হুমকীর মুখে রবীন্দ্রাথ ঠাকুরের কুঠিবাড়ীসহ ৬ টি গ্রাম

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৯৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৩ জুন, ২০২০, ১০:২২ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার মধ্যদিয়ে প্রবাহিত শিলাইদহ ইউনিয়নের কোমরকান্দি এলাকার পদ্মা নদীর দেড় কিলোমিটার নদীর পাড়ের আগাম ভাঙন ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। বিশ্বকবি রবী›ন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত রবীন্দ্র কুঠিবাড়ী, কোমরকান্দি, কান্দাবাড়িয়া,জাহেদপুরে,বেলগাছিসহ ৬ টি গ্রাম ঝুঁকিতে রয়েছে। কুঠিবাড়ী রক্ষায় পদ্মা নদী পাড়ের প্রধান অংশ দেড় কিলোমিটার ব্যতি রেখে দুইপাশে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ করায় এমন আগাম ভাঙন শুরু হয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। এদিকে খবর পেয়ে সোমবার সকালে ভাঙন এলাকা ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করেন কুষ্টিয়া পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী পীযূষ কৃষ্ণ কুন্ডু,কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান, উপজেলা প্রকল্প বাস্ত’বায়ন কর্মকর্তা মাহমুদুল ইসলাম, শিলাইদহ ইউপি চেয়ারম্যান সালাহ্উদ্দিন খান তারেক সহ স্থানীয় প্রশাসন। সরেজমিন গেলে স্থানীয়রা জানান, বর্ষার শুরুতে নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। ঘনঘন বৃষ্টি আর বাতাসে কোমরকান্দির জালাল সর্দারের বাড়ি থেকে জলা প্রামাণিকের বাড়ি পর্যন্ত ভেঙে পড়ছে নদীর পাড়, এতে করে ভাঙনের আতঙ্কে নিয়ে জীবন পার করছেন তারা। ভুক্তভোগী জালাল সর্দার জানান,ভাঙনের জন্য দুইবার ঘর সরিয়ে নিয়েছি, আবারও নদী ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে ঘড়ের কিনারে চলে আইছে।গরীব মানুষ বারবার ঘর সরানোর টাকা কই পাব। সুফিয়া খাতুন জানান,পানির শব্দে রাতে ঘুম হয়না।কখন যেন ভেঙে চলে যায়,বাঁধ নির্মাণ করা হলে আমরা বেঁচে যেতাম। এবিষয়ে শিলাইদহ ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন খান তারেক জানান, এবছর আগাম পাড় ভাঙন শুরু হয়েছে পদ্মা নদীতে, ভাঙন রোধ না করা হলে হাজার হাজার বিঘা কৃষিজমি,ঘর-বাড়ি সহ ৬ টি গ্রাম নদীগর্ভে বিলিন হয়ে যাবে। তিনি আরো জানান, কুঠিবাড়ী প্রতিরক্ষা হিসেবে প্রায় চার কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ হলেও মাঝখানে দেড় কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ না থাকায় রক্ষা পাইনি কুঠিবাড়ী। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান জানান,ভাঙন এলাকা ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করা হয়েছে, ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কুষ্টিয়া পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী পীযূষ কৃষ্ণ কুন্ডু জানান,শিলাইদহ কুঠিবাড়ী রক্ষায় একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে।ভাঙন বেশি হওয়ায় শিলাইদহ এলাকায় ১ হাজার মিটার ও সুলতানপুর এলাকায় ২ হাজার ৭২০ মিটার প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে আগেই। তিনি আরো জানান,দুই বাঁধের মাঝে দেড় কিলোমিটার অংশে হঠাৎ ভাঙন শুরু হয়েছে, তবে ভাঙন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.