বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:৫২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :

পিপিই ও এন-৯৫ মাস্ক কেলেঙ্কারি অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ দুদকের

অনলাইন ডেস্ক / ১০৪ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০, ৬:১১ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পিপিই ও এন-৯৫ মাস্ক ক্রয়ে অনিয়মের ঘটনা আমলে নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ ব্যাপারে বুধবার অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা নিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য যুগান্তরকে বলেন, শিগগিরই আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে।

জানা গেছে, দুদকের বিশেষ অনুসন্ধান ও তদন্ত শাখার মহাপরিচালকের তত্ত্বাবধানে অনুসন্ধান কাজ পরিচালিত হবে। একজন পরিচালকের অধীনে অনুসন্ধান কাজ ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে শেষ করতে কমিশন থেকে বলা হয়েছে।

করোনাকালেও স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতি থেমে নেই। ভয়াবহ দুর্নীতির কারণে দেশের মানুষ স্বাস্থ্য সেবা থেকে চরমভাবে বঞ্চিত হচ্ছে। স্বাস্থ্য সেবা খাতের সর্বশেষ দুর্নীতির ঘটনাটি তাই দুদক অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। জেএমআইয়ের সরবরাহ করা মাস্ক ও পিপিই সামগ্রীর ঘটনা ছাড়াও চট্টগ্রামের একজন ব্যবসায়ী ভুয়া এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহ করেছেন। অনুসন্ধানকালে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে দুদকের পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে একটি উচ্চপর্যায়ের টিম এ সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে। সংগৃহীত তথ্য-উপাত্ত, কাগজপত্র ও আলামতের ভিত্তিতে অগ্রগতি প্রতিবেদন তৈরি করে কমিশনে দাখিল করার পর বুধবার অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়। এছাড়া এ বিষয়ে দুদকের যাচাই-বাছাই টিমের মতামতও নেয়া হয়। তারাও অভিমত দিয়েছেন, এন-৯৫ মাস্ক ও অন্য সামগ্রী কেনাকাটায় অনিয়ম হয়েছে।

দেশের করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করলে সরকার চিকিৎসা সেবা সচল রাখতে জরুরি ভিত্তিতে পিপিই ও এন-৯৫ মাস্ক কেনার সিদ্ধান্ত নেয়। এজন্য প্রথম দফায় প্রায় ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএমআইকে পিপিই ও এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের জন্য কার্যাদেশ দেয়া হয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অভিযোগ- ভুয়া এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তদন্ত করে কি পেয়েছে তা গোপন করছে। তবে দুদকের অনুসন্ধানে সে বিষয়টিও সামনে আনা হচ্ছে।

জানা গেছে, মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতে সিএমএসডির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সহীদউল্লাহকে প্রত্যাহার করা হয়। তার স্থলে একজন অতিরিক্ত সচিবকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানের হাতে অন্তত ১ হাজার কোটি টাকার কেনাকাটার বিষয় রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.