শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৫১ অপরাহ্ন

ভালো নেই কুমারখালীর তাঁতিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৬৯ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৮ মে, ২০২০, ৯:৪৭ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর তাঁত শিল্পের সঙ্গে জড়িত মালিক-শ্রমিকরা ভালো নেই। চরম অর্থ সঙ্কটে রয়েছেন তারা। নানা কারণে জেলার এককালের প্রসিদ্ধ এই শিল্প আজ বিলুপ্তের পথে। এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত শ্রমিকরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে।
এই শিল্পে ক্রমাগত লোকসান, প্রয়োজনীয় পুঁজি, সুষ্ঠু নীতিমালার অভাব ছিল এতদিন। এখন মহামারী করোনার কারণে চরম দুর্দিনে রয়েছেন তাঁত শ্রমিকরা। তাদের সংসার চলে খেয়ে না খেয়ে। সব তাঁত এখন বন্ধ। অথচ আগে সকাল থেকে সন্ধ্যা অবদি টাকুর-টুকুর শব্দে মুখর হয়ে থাকত তাঁতপল্লীগুলো। এখন আর সেখানে তাঁতের কর্মমুখরতা নেই। বর্তমানে সেখানে নিঃশব্দে মুখথুবড়ে পড়ে আছে তাঁতগুলো। ঠিকমতো সংসার চলে না শ্রমিকদের। পেটের দায়ে পূর্বপুরুষের এই পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে তারা।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তাঁতশিল্প নগরী খ্যাত কুষ্টিয়ার কুমারখালী, খোকসা ও পাংশা, উপজেলায় লক্ষাধিক তাঁতি ছিল। এর মধ্যে হস্তচালিত তাঁত ৪৪ হাজার ও বিদ্যুৎচালিত তাঁত ৬০ হাজার প্রায়। প্রতি বছর ২৬০ কোটি টাকা মূল্যের কাপড় তৈরি হতো এ জেলায়। ২ কোটি ৮৮ লাখ পিস লুঙ্গি, ১৫ লাখ পিস বেডকভার, ৭২ লাখ পিস গামছা তোয়ালে উৎপাদন হতো। এক সময় এ জেলায় বস্ত্রশিল্পের বার্ষিক আয় ছিল ৩০০ কোটি টাকার ওপরে।
দেশের মোটা কাপড়ের চাহিদার ৬৩ ভাগ পূরণ করত কুষ্টিয়ার তাঁতিরা। ১৯৯০ সাল পর্যন্ত এ তাঁত কাপড়ের ছিল ব্যাপক চাহিদা। বর্তমানে এ চাহিদা কমে ২৫ ভাগে নেমে এসেছে। সব কিছুর দাম বাড়লেও আশানুরূপ তাঁতবস্ত্রের কোনো দাম না বাড়ায় কুষ্টিয়ার ১ লাখ ১৪ হাজার শ্রমিকের মধ্যে ৫০ হাজার তাঁত শ্রমিক পেশা ছেড়ে দিয়েছে।
এখনও পুরনো পেশা হিসেবে এ পেশায় টিকে আছে কয়েক হাজার তাঁতি। কয়েকজন তাঁতি জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ এ পেশার সঙ্গে জড়িত আছে তারা। তাই অনেকেই এ তাঁত শিল্পে এখনও টিকে আছে। এ কাজ করেই সংসার চলে কুমারখালীর তাঁতিদের। এই তাঁতশিল্পকে বাঁচাতে হলে অবশ্যই কারিগরদের দিকে তাকাতে হবে সরকারকে।
করোনার কারণে যেন এই শতবর্ষের ঐতিহ্য হারিয়ে না যায় সেই বিষয়ে এখনই শ্রমিক ও মালিকদের প্রয়োজনীয় অর্থ ও কাঁচামালের ব্যবস্থা করতে হবে। এমনটি মনে করেন তাঁতশিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর