বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:০০ অপরাহ্ন

নিজের চুল বিক্রি করে সন্তানের জন্য খাবার কিনলেন মা

Reporter Name / ১০৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ এপ্রিল, ২০২০, ৫:৫৭ পূর্বাহ্ন

ঢাকা অফিস :দুদিন ধরে না খেয়ে আছেন, ঘরে রান্না করার মতো একটু খাবারও নেই। ১৮ মাসের সন্তানের খাবারও শেষ। ত্রাণের সন্ধানে গেছেন অনেকের কাছে, কোথাও থেকে মেলেনি একটু সহায়তা। অবশেষে সোমবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে পথেই পরিচয় হয় এক হকারের (চুল ক্রেতা) সঙ্গে। মাথার চুল দেখিয়ে বিক্রি করলে কত টাকা পাবেন বলে জানতে চান তিনি। হকার জানান তিনি ৩ থেকে ৪শ টাকা দেবেন। কিন্তু মাথার চুল কেটে দেয়ার পর হাতে মাত্র ১৮০ টাকা ধরিয়ে দিয়ে চলে যান। কথাগুলো বলছিলেন আর চোখ থেকে পানি গড়িয়ে পড়ছিল সাভার পৌর এলাকার ব্যাংক কলোনী মহল্লার বাসিন্দা ও দুই সন্তানের মা সাথী বেগমের।অভাবের কারণে গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ থেকে চার মাস আগ মিরপুরে আসেন। সেখান থেকে দেড় মাস আগে সাভারের ব্যাংক কলোনীর নানু মিয়ার টিনশেড বাড়িতে ঘর ভাড়া নেন তারা। এলাকায় নতুন আসায় কেউ চেনে না দেখে ত্রাণও দেননি।সাথী বেগম বলেন, দেড় মাস আগে স্বামী মানিকের সঙ্গে সাভারের ব্যাংক কলোনী এলাকায় টিনশেডের ভাড়া বাড়িতে ওঠেন। তার স্বামী পেশায় দিনমজুর। তিনি নিজেও বাসা বাড়িতে কাজ করেন। তবে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে বাসার মালিক কাজে যেতে নিষেধ করে দিয়েছেন। তার স্বামীও কোনো কাজ না পেয়ে বাড়িতে বেকার হয়ে বসে আছেন। গত দুই দিন যাবৎ ঘরের সব খাবারও শেষ। ১৮ মাসের শিশু সন্তানেরও কোনো খাবার নেই। এখানে নতুন এসেছেন, কাউকে তেমন চেনেন না। কোথায় ত্রাণ দেয় সেটাও জানা নেই।প্রতিবেশীর কাছ থেকে খবর পেয়ে দুই জায়গায় সহযোগিতার জন্য গিয়েছিলেন। তবে তাকে চেনে না বলে ত্রাণ দেয়নি কেউ। সহায়তা খুঁজতে গিয়ে এক হকারের (চুল ক্রেতা) সঙ্গে পরিচয় হয়। মাথার চুল কেটে দিলে ৪০০ টাকা দেয়া যেতে পারে জানালে চুল কেটে দেন তিনি। তবে চুল হাতে পাওয়ার পর হকার তাকে ১৮০ টাকা ধরিয়ে দিয়ে যায়। ওই টাকা দিয়ে শিশুর জন্য দুধ ও এক কেজি চাল কিনেছেন বলে জানান সাথী বেগম।তিনি আরও বলেন, করোনায় তাদের সব কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। বাড়ির মালিক এখানে থাকে না। তিনি মাসে একবার আসেন। এখানে নতুন আসার কারণে তেমন কারো সঙ্গে পরিচয়ও নেই। প্রতিবেশী ভাড়াটিয়ারাও বাসাবাড়িতে কাজ করেন তাদেরও একই অবস্থা।প্রতিবেশী রিকশাচালক সুমন বলেন, লকডাউন হয়ে যাওয়ার পর সড়কে কোনো যাত্রী নেই। তারাও কোনোরকম মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ওই নারীকে সহযোগিতা করার সামর্থ্য তার নেই।সাভার উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই, তবে অত্যন্ত দুঃখজনক ও মানবিক ব্যাপার। তিনি খুব দ্রুত ওই পরিবারে ত্রাণ পৌঁছানোর ব্যবস্থা করবেন।সাভার পৌর মেয়র আব্দুল গনি বলেন, তিনি নিজেও পৌর এলাকায় অনেক জায়গায় ত্রাণ বিতরণ করেছেন। তবে ওই নারীর চুল কেটে বিক্রি করার বিষয়ে তিনি জানেন না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
২,৯৪৯
৩৭
২,৮৬২
১৩,৪৮৮
সর্বমোট
১৭৮,৪৪৩
২,২৭৫
৮৬,৪০৬
৯০৪,৫৮৪
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect. Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.