শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৫৬ অপরাহ্ন

তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুবার্ষিকী উপলে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৩৩ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০, ১০:১৭ অপরাহ্ন

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী, বর্ষিয়ান জননেতা তরিকুল ইসলাম ও অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র ও বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুবার্ষিকী উপলে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সন্ধায় কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির কার্যালয়ে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির উদ্যেগে এই আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী। বক্তব্য রাখেন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, সাবেক এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্য সোহরাব উদ্দিন, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি বশিরুল আলম চাঁদ, যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার শামসুজ্জাহিদ, যুব-বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, জেলা বিএনপির ুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক জালাল উদ্দিন মোল্লা, সহ-স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ চেয়ারম্যান, সহ-দপ্তর সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি এ্যাড শাতিল মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম বিপ্লব, জেলা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদ মোকারম হোসেন মোকা, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান রাসেল, মিরপুর উপজেলা বিএনপির নেতা আছের আলী, জেলা যুবদল নেতা মকছেদুর রহমান কল্লোলসহ বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ। সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী বলেন, “মরহুম তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন গণমানুষের রাজনীতির সাথে আজীবন যুক্ত। দেশ ও দশের প্রতি সহমর্মী সবসময় নিজ আদর্শে ছিলেন অবিচল। জাতীয়তাবাদী রাজনীতির কল্যাণে গণমানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটিয়ে সামাজিক ন্যায়বিচার ভিত্তিক শোষণমুক্ত সমাজ এবং গণতান্ত্রিক, মানবিক ও কল্যাণমূখী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই ছিল মরহুম তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকার রাজনীতির মূল ল্য। এ ল্েয নিরলসভাবে কাজ করেছেন আজীবন। আজীবন সংগ্রামী তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকা নিষ্ঠুর নির্যাতন সহ্য করেও কঠিন সিদ্ধান্তে অটুট থাকতেন। তাদের রাজনীতি দলীয় নেতাকর্মীদেরকে সবসময় অনুপ্রেরণা যোগাবে। মুক্তিযুদ্ধ, স্বৈরাচার ও ফ্যাসিবাদ বিরোধী গণতন্ত্র পূণ:রুদ্ধারের আন্দোলনে এবং বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার অধিকার আদায়ের সংগ্রামে মরহুম তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকা এর অবদান অবিস্মরণীয়। অধ্য সোহরাব উদ্দিন বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দেশমাতৃকার মুক্তিতে তাঁর সাহসী ভূমিকার জন্য জাতি তাঁকে চিরদিন কৃতজ্ঞতাচিত্তে স্মরণ করবে। তাঁদের কর্মময় জীবনের সাফল্যের মূলে ছিল আদর্শনিষ্ঠ উদ্যম ও উদ্যোগ। জনঘনিষ্ঠ ও কর্মীবান্ধব রাজনীতিবিদ হওয়ার কারণেই তিনি জনগণ ও দলের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিকট ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব। মরহুম তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকার রাজনীতির মধ্যে নিহিত ছিল সমাজ উন্নয়নের মূল শক্তি। বিভিন্ন পর্যায়ে জনপ্রতিনিধি হিসেবে সমাজকল্যানমূলক কাজই অগ্রাধিকার দিয়েছেন। তরিকুল ইসলাম ও সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যু বাংলাদেশের রাজনীতিতে এক গভীর শুণ্যতা। আমরা সত্যিকারের অভিভাবককে হারিয়েছি। আলোচনা সভা শেষে মরহুমদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
এক ক্লিকে বিভাগের খবর